ostadjir kanna

ostadjir kanna

উস্তাদজীর কান্না

বর্তমানের উন্নতি মানে হলো একজনের উন্নতি এবং তার কারনে দশ জনের অবনতি। এ বিষয়ে একটি কাহিনী মনে পড়ে।

এক মিয়াজী এক ব্যক্তির বাড়িতে বাচ্চাদের পড়াবার কাজ করতেন। বাড়ীর মালিক বিদেশে গিয়ে বিরাট এক চাকরি পেয়ে বসলো। অনেক টাকা বেতন । এ সুসংবাদ জানিয়ে সে বাড়ীতে চিঠি লিখলো। চিঠি কেউ পড়তে পারতো না। চিঠি পড়ে শোনাবার জন্যে অবশেষে তারা উস্তাদজীর নিকট নিয়ে গেল। উস্তাদজী চিঠি পড়ে কাঁদতে লাগলেন। বাড়ীর সবাই উস্তাজীকে কাঁদার কারণ জিজ্ঞাসা করলো। তিনি বললেন তোমরাও কাঁদ-পরে বলবো।

বাড়ীর সবাই কান্নাকাটি করতে লাগলো।কান্নার আওয়াজ শুনে এলাকার সবাই ছুটে আসলো। কান্নার কারণ কি জিজ্ঞাসা করলো। মোল্লাজি বললেন তেমরাও কাঁদ।এলাকার লোকরাও কাঁদতে লাগলো। হাঁউ মাউ আওয়াজে গোটা মহল্লা ভারি হয়ে উঠলো। যখন সবাই ক্লান্ত হয়ে পড়েছে এবং কান্নার রোল স্তিমিত হয়েছে তখন সবাই মোল্লাজীর নিকট জানতে চাইল হজুর এ কান্নার কারণ কি?

উস্তাদজী বললেন বাড়িওয়ালার চিঠি এসেছে। তিনি বড় একটা চাকরী পেয়েছেন এবং অনেক টাকা বেতন হয়েছে। লোকেরা বললো এইতো আনন্দের কথা। কান্নার তো কোনো কারণ দেখি না। ওস্তাদজী বললেন তোমরা বুঝতেই পারছো না। যখন এত টাকা বেতন হয়েছে তখন তিনি বাচ্চাদেরকে আর আরবি পড়াবেন না। বাড়ীতে শিক্ষক রাখবেন। আমরা চাকুরী যাবে। তাই আমরা কান্না। বাড়ীর মালিকের স্থালে নতুন যুবতী স্ত্রী ঘরে আসবে। সংসার ভাঙ্গবে। তাই বাড়ীর সকলের কান্না।

এলাকায় এসে যখন তিনি বসবাস আরম্ভ করবেন তখন তার আরবি ঘোড়া এবং মটরগাড়ী রাখার জন্যে পাড়ার মানুষদেরকে উচ্ছেদ করা হবে। তার বাড়ীটি বিরাট হবে। আর পাড়ার মানুষ হবে ভিটা ছাড়া, রাস্তা হারা। কাজেই পাড়ার সবাইনা কেঁদে পারে না। অতঃপর বিশেষ ব্যক্তির উন্নতিই যে সাধারণ মানুষের অবনতির কারণ   কাহিনীটি তার একটি সুন্দর চিত্র।– [আল-এফাযাতুল য়্যাওমিয়্যাহ ৮খন্ড ২৯পৃষ্ঠা]

গল্পটি ভালো লেগে থাকলে অনেক অনেক শেয়ার করবেন এবং কমেন্ট করবেন। আপনাদের এই সুন্দর কমেন্ট আমাদেরকে নতুন গল্প করতে মোটিভেট করে এবং সব সময় আলোর বাণীর সঙ্গে যুক্ত থাকবেন ধন্যবাদ।

Leave a Comment