স্বামী-স্ত্রী পরস্পরে মিলিত হলে কি করতে হবে

স্বামী-স্ত্রী পরস্পরে মিলিত হলে কি করতে হবে

স্বামী-স্ত্রী পরস্পরে মিলিত হলে কি করতে হবে? স্বামী-স্ত্রী যৌনাঙ্গ পরস্পর মিলিত হলে গসল করা ফরয হয়ে যায়। হযরত আবু হুরায়রা (রাঃ) থেকে বর্ণীত তিনি বলেন, রসুল (সাঃ) বলেছেন পুরুষ যখন নারীর চার শাখার মধ্যে বসে (সংগম করে) তখন অবশ্যই তার উপর গোসল ফরয হয়। (বুখারী) অত্র হাদীস থেকে বলা যায় যে, নারীর চার শাখায় অর্থাৎ স্ত্রী চিৎ হয়ে শুয়েছে। স্বামী স্ত্রী উপর মুখোমুখি হয়েছেন। স্ত্রীর উরু দুটির ঠিক মধ্যখানে। শরীরের সমস্ত ওজনটাই যাতে স্ত্রীর উপর…

Read More

মু‘মিন কখনো অপবিত্র হয় না

মু‘মিন কখনো অপবিত্র হয় না

মু‘মিন কখনো অপবিত্র হয় না বহু হাদীস থেকে প্রমাণীত হয় যে, বীর্য বা ধাতু নাপাক নয়। অবশ্য কেউ কেউ নাপাক বললেও তাদের অভমত বীর্য নাজাসে হুকুমী মনী বের হলে খুটিঁয়ে ফেলে দিলেই যথেষ্ট হবে।এতে মানুষের মল-মূত্রের ন্যায় নাজাসে আইন হয়ে যায় না। যেমন মল-মূত্র কাপড় থেকে ভালভাবে ধৌত না করলে ঐ কাপড় পরিধান করে নামায পড়লে তো কবুল হবেই না; বরং কবরে ভয়ানক আযাবের সম্মূখীন হতে হবে বলে হাদীসে উল্লেখ রয়েছে। এখন প্রশ্ন হচ্ছে বীর্য…

Read More

লিঙ্গ থেকে মনী বের হওয়ার বর্ণনা

লিঙ্গ থেকে মনী বের হওয়ার বর্ণনা

লিঙ্গ থেকে মনী বের হওয়ার বর্ণনা মনী আল্লাহ পাকের এমন একটি সৃষ্টি যার দ্বারা পুনরায় মানুষ সৃষ্টি হয়। হাম্মাম বিন হারিস (রাঃ) থেকে বর্ণীত, আয়েশা (রাঃ)-এর ঘরে একজন মেহমান আসেন। মা আয়েশা (রাঃ) তার বিছানায় একটি হলুদ রং এর চাদর বিছিয়ে দেয়ার নির্দেশ দেন। মেহমান ঐ বিছানায় শুয়ে পড়লে স্বপ্নদোষ হওয়ায়  বিছানায় বীর্য লেগে যায়। মেহমান বীর্যের চিহ্নসহ চাদরটাকে আয়েশা (রাঃ)-এর কাছে ফিরিয়ে দিতে লজ্জাবোধ করেন। তাই তিনি চাদরটিকে পানিতে ধুয়ে তার কাছে পাঠিয়ে দেন।…

Read More

মনী বা বীর্য সম্পর্কে আলোচনা

মনী বা বীর্য সম্পর্কে আলোচনা

মনী বা বীর্য সম্পর্কে আলোচনা হযরত আলী (রাঃ) হতে বর্ণীত তিনি বলেন, আমি রসুল (সাঃ)-কে মযী সম্পর্কে জিজ্ঞেস করেছি, তদুত্তরে তিনি বলেন মযী বের হলে অযু করতে হবে। আর মনীতে (বীর্যপাত হলে) গোসল করতে হবে। (তিরমিযী) হযরত আলী (রাঃ) হতে রসুল (সাঃ) হতে একাধিক সূত্রে বর্ণিত হয়েছে, মযী বা পাতলা আঠালো পানি দু‘এক ফোঁটা বা আরো অধিক পরিমাণে বের হলেও গোসল করতে হবে না, বরং ওযু করলেই যথেষ্ট হবে। আর মনী (ঘন গাঢ় বীর্য) বের…

Read More

হিজড়াদের জন্য আল্লাহর ইবাদত করার আবশ্যকতা আছে কী?

হিজড়াদের জন্য আল্লাহর ইবাদত করার আবশ্যকতা আছে কী?

হিজড়াদের জন্য আল্লাহর ইবাদত করার আবশ্যকতা আছে কী? হিজড়ারা মহান আল্লাহর ইবাদত করার জন্য মুকাল্লাফ (দায়বদ্ধ)। হিজড়ারা নারী ও পুরুষ গন্য হওয়ার মধ্যে সংশয় থাকলেও তারা মানুষ হওয়ার ক্ষেত্রে নিঃসন্দেহ। আল্লাহ তা‘আলা মানুষদের জন্য তার ইবাদতের ঘোষনা দিয়ে বলেন- আমার ইবাদত করার জন্যই আমি জ্বিন এবং মানব জাতিকে সৃষ্টি করেছি। (সুরা আয-যারিয়াত আয়াত নং ৫৬)। তবে কিছু কিছু ইবাদতের বেলায় হিজড়াদের বিষয়ে আলাদা বিধান রয়েছে। যেমন- শায়খ ইবনু উসাইমিন বলেন হিজড়াদের জন্য জামা‘আতে যাওয়া আবশ্যক…

Read More

নামের পূর্বে হাজী বা আলহাজ্জ শব্দ ব্যবহার করা যাবে কী?

নামের পূর্বে হাজী বা আলহাজ্জ শব্দ ব্যবহার করা যাবে কী?

নামের পূর্বে হাজী বা আলহাজ্জ শব্দ ব্যবহার করা যাবে কী? নামের পূর্বে হাজী বা আলহাজ্জ শব্দ ব্যবহার জায়িয আছে কী? নামের পূর্বে হাজী বা আলহাজ্জ ব্যবহার না করলে অসন্তোষ্ট হওয়ার বিধান কী? আলহাজ্জ বা হাজী নামে নামরত হওয়া বর্জন করা উচিত। শরী‘আহ নির্ধারিত ফরয বা ওয়াজিব আমল সম্পাদন করার দ্বারা উপাধি ধারণ করা ইখলাসের পরিপন্থি। উপরস্ত আলহাজ্জ বা হাজী নামে ডাকা না হলে অসন্তুষ্ট হওয়া খুবই গর্হিত চিন্তা। প্রত্যেক হাজ্জ সম্পাদনকারী ব্যক্তির উচিত হাজী নামে…

Read More

নগদ বিকাশ রকেট বা মোবাইল ব্যাংকিং এজেন্ট হিসাবে কাজ করা যাবে কী

নগদ বিকাশ রকেট বা মোবাইল ব্যাংকিং এজেন্ট হিসাবে কাজ করা যাবে কী

নগদ বিকাশ রকেট বা মোবাইল ব্যাংকিং এজেন্ট হিসাবে কাজ করা যাবে কী? প্রচলিত মোবাইল ব্যাংকিং সুদভিত্তিক ধ্যান ধারনার উপরই প্রতিষ্ঠিত। অনেকাংশে এই ব্যাংক নিবর্তনমূলকও। বিধায় মোবাইল ব্যাংকিং-এর এজেন্ট হওয়া বৈধ হবে না। সাধারন ব্যবহারকারীদেরও উচিত হবে সুদিভিত্তিক মোবাইল ব্যাকিংকে না বলা। প্রচলিত মোবাইল ব্যাংক মূল ধারার সুদভিত্তিক ব্যাংক গুলোর আদর্শ ধরেই পরিচালিত হচ্ছে। মোবাইল ব্যাংকিং একাউন্টে রক্ষিত টাকার উপর সুদ প্রদান করা হয়। আর আল্লাহ তা‘আলা বলেন- আল্লাহ ব্যবসা-বানিজ্যকে হালাল করেছেন এবং সুদকে হারাম করেছেন।…

Read More

উর্ধ্বতন কর্মকর্তা তার অধীনস্তদের দ্বীনের কথা বলার কর্তব্য আছে কী-

উর্ধ্বতন কর্মকর্তা তার অধীনস্তদের দ্বীনের কথা বলার কর্তব্য আছে কী-

উর্ধ্বতন কর্মকর্তা তার অধীনস্তদের দ্বীনের কথা বলার কর্তব্য আছে কী? আমি সরকারী অফিসের একজন উর্ধ্বতন কর্মকর্তা, আমার অধীনস্তদের প্রতি দ্বীনের কথা জানানোর কর্তব্য কি আমার রয়েছে? হ্যাঁ অধীনস্তদের দীনের দা‘ওয়াত দানের আবশ্যকতা আপনার উপর রয়েছে। দা‘ওয়াতের ক্ষেত্রে প্রশস্ত , আপনার আশপামের যে খোনে থাক সকলের প্রতি দ্বীনের দা‘ওয়াত দেওয়ার কর্তব্য আপনার জন্য রয়েছে। আল্লাহ তা‘আলা দা‘ওয়াতের ক্ষেত্রকে অবারিত ও উন্মক্ত করে দিয়ে বলেন, আল্লাহর পথে আহব্বান জানাও প্রজ্ঞাসমতে এবং উত্তম উপদেশের মাধ্যমে এবং তাদের সাথে…

Read More

চুল বা নখ মাটিতে পুতে ফেলতে হবে কী

চুল বা নখ মাটিতে পুতে ফেলতে হবে কী

চুল বা নখ মাটিতে পুতে ফেলতে হবে কী? চুল আঁচড়ালে চিরুনির সাথে যে চুল ছিঁড়ে আসে তা এদিক-সেদিক না ফেলে অনেকেই পলিথিন ব্যাগে রাখে। প্রশ্ন হলো, কিছু চুল জমা হয়ে গেলে তা ডাস্টবিন বা ময়লা-আবর্জনা রাখার জায়গায় ফেললে পাপ হবে কী? উত্তরে বলা যায় যে, মাথার চুল নখ ইত্যাদি মাটির নিচে পুঁতে ফেলা অধিক উত্তম। তবে জরুরী নয়। ইবনু উমার (রাঃ)-সহ একাধিক সাহাবির আমল থেকে পুঁতে ফেলার প্রমাণ পাওয়া যায়। কিন্তু এ বিষয় রসুল (সাঃ)…

Read More

অমুসলিমদের সাথে কেনাবেচা ও কাজ করার বিধান কী

অমুসলিমদের সাথে কেনাবেচা ও কাজ করার বিধান কী

অমুসলিমদের সাথে কেনাবেচা ও কাজ করার বিধান কী? অমুসলিমদের সাথে কেনাবেচা শরিকানায় ব্যবসা এবং তাদের ঘর-বাড়ি দোকান ইত্যাদিতে কাজ করার বিধান। ইসলাম একটি অত্যন্ত সামাজিক,ভারসাম্যপূর্ণ ও কল্যাণমুখী জীবনাদর্শের নাম। সমাজে যদি অমুসলিম বসবাস করে তাহলে ইসলাম তাদের সাথে শান্তিপূর্ণ বসবাস, সুসম্পর্ক, সামাজিক যোগাযোগ ইত্যাদিতে বাধা দেয় না। তারা যদি বিপদগ্রস্থ হয় মুসলিমরা তাদের সাহায্যে ছুটে যাবে, অভাবীকে ঋণ অভুকক্ত থাকলে তার খাবারের  ব্যবস্থা করবে, আচার-আচরণে মানবিক ও চারিত্রিক সৌন্দর্যের  বহিঃপ্রকাশ ঘটাবে, তাদের প্র্রতি কোন ধরনের…

Read More
1 2 3 22