রোগ ব্যাধির কারণে চুল সাদা হলে কলপ করা যাবে কী?

রোগ ব্যাধির কারণে চুল সাদা হলে কলপ করা যাবে কী?

যে সমস্ত লোকদের অল্প বয়সে রোগ-ব্যাধির কারনে তাদের চুল সাদা হয়ে যায়। তাদের চুল কালো করার জন্য কলপ লাগানো যাবে কী ?  চুল-দাড়িতে কলপ খেজাব বা মেহেদি অনেকেই ব্যবহার করে থাকেন। ইদানীং বার্ধক্যজনিত কারণ ছাড়াও অপরিণত বয়সে অনেক যুবকের মাথার চুল পেকে যায়। তাছাড়া সাদা দাড়িওয়ালা অনেকে দাড়ি ও চুলে খেজাব বা মেহেদি ব্যবহার করেন।
পাকা চুল-দাড়ি সাদা না রেখে মেহেদি দিয়ে রাঙিয়ে রাখতে রাসুল (সাঃ) নির্দেশ দিয়েছেন। তবে তাতে কালো কলপ ব্যবহার করা বৈধ নয়।

না, তাদের চুলে কলপ লাগানো যাবে না। কেননা কলপ বা কালো খেযাব ব্যবহার করা নিষিদ্ধ। হযরত জাবের (রাঃ) থেকে বর্ণীত তিনি বলেন রসুল (সাঃ) বলেছেন, তোমরা সাদা চুল কালো করা থেকে বেঁচে থাকো। (মুসলিম হাঃ২১০২, মিশকাত হাঃ৪৪২৪)। এ হাদিসে কালো ছাড়া মেহেদি রং বা অন্য খেজাব ব্যবহারের উৎসাহ দেয়া হয়েছে এবং কালো খেজাব ব্যবহার করতে নিষেধ করা হয়েছে।
তিনি আরো বলেনছেন শেষ যামানায় এমন কিছু লোক বের হবে যারা কবুতরের বক্ষের ন্যায় কালো রংঙ্গের খেযাব দিয়ে চুল কালো করবে। তারা জান্নাতের সুগন্ধীও পাবে না। (আবু দাঊদ হাঃ ৪২১২, নাসাঈ হাঃ৫০৭৫, মিশকাত হাঃ৪৪৫২)।
তাই উল্লিখিত হাদীস অনুযায়ী এ অবস্থায় কলপ বা কালো খেযাব লাগানো উচিৎ হবে না। বরং মেহেদী রংয়ের খেযাব লাগানো উত্তম। রসুল (সাঃ) বলেন মেহেদীর রং হলো সর্বোত্তম খেযাব। (আবু দাউদ, তিরমিযী, নাসাঈ, মিশকাত হাঃ ৪৪৫১)।
উল্লেখ্য যে, রসুল (সাঃ)-এর দাদা আব্দুল মুত্ত্বালিব জন্ম গতভাবেই মাথায় সাদা চুলের অধিকারী ছিলেন (আর রাহীকুল মাখতুম ৪৯পৃষ্ঠা) এজন্য তার নাম ছিল শায়বাহ বা সাদা চুলের অধিকারী। সুতরাং জেনেটিক কারণে সাদা চুলের অধিকারী হওয়া দোষের কিছু নয়, বরং সামাজিক ভাবে বিষয়টি সহজ ভাবে নেওয়াই কর্তব্য। আরোও জানা আবশ্যক যে, আরবদের মধ্যে আব্দুল মুত্ত্বালিবই সর্বপ্রথম কালো কলপ ব্যবহার করেন। আর সাধারণ ভাবে প্রথম কালো কলপ ব্যবহার করে ফেরউন । (ফাতহুল বারী, ১০/৪৩৫)।




হযরত আবু উমামা (রাঃ) হতে বর্ণিত, রসুল (সাঃ) কিছু আনসার সাহাবাদের উদ্দেশে বলেন, সাদা দাঁড়ি চুলগুলো লাল অথবা হলুদ রং দ্বারা পরিবর্তন করো এবং আহলে কিতাবদের বিরোধিতা করো। (আহমাদ হাঃ২২৩৩৭)
এসব হাদিস থেকে বোঝা যায় যে চুল বা দাঁড়িতে কালো রং করা যাবে না। তবে অন্য যে কোনো রং করা যাবে। অর্থাৎ কালো বাদে অন্য যে কোনো রং করা যাবে এবং সেটি নারী-পুরুষ উভয়ের জন্যই প্রযোজ্য। কেননা নারীদেরও তো চুল সাদা হতে পারে।
বার্ধক্যজনিত কারণে সাদা হয়ে যাওয়া চুল-দাড়িতে কালো খেজাব ব্যবহারে নিষেধের মূল কারণ হলো এর দ্বারা আল্লাহ প্রদত্ত বার্ধক্যকে গোপন করে মানুষের সামনে নিজেকে তরুণ হিসেবে উপস্থাপন করা। ফলে ব্যক্তিগত আচরণেও প্রভাব পড়ে। এটি এক ধরনের প্রতারণা।
আলোচ্য প্রশ্ন উত্তরগুলি ভালো লেগে থাকলে অনেক অনেক শেয়ার করবেন এবং কমেন্ট করবেন। আপনাদের এই সুন্দর কমেন্ট আমাদেরকে নতুন প্রশ্ন উত্তর পোষ্ট করতে মোটিভেট করে এবং সব সময় আলোর বাণীর সঙ্গে যুক্ত থাকবেন ধন্যবাদ।

Leave a Comment