বিবাহ বিচ্ছেদের পর ঐ স্বামীর সংসার করতে চাইলে করণীয় কী?

বিবাহ বিচ্ছেদের পর ঐ স্বামীর সংসার করতে চাইলে করণীয় কী?

তালাক প্রদানের উদ্দেশ্য হল অন্যায় জুলুম ও নিদারুন কষ্ট জ্বালাতন ও উৎপীড়ন ইত্যাদি অশান্তি হতে মুক্তি লাভ করা। প্রকৃতপক্ষে ইসলামে তালাক প্রদানের যে উদ্দেশ্য তা হল স্বামী স্ত্রী উভয়ের মধ্যে যে সকল অশান্তি সৃষ্টিকারী কারণ সমূহ রয়েছে তা হতে সংশোধনের চেষ্টা করা বা দুর করা।

মেয়ে (খোলা) তালাক দেওয়ার এক মাস পরে আবার যদি ঐ স্বামীর সাথে সংসার করতে চায় তাহলে তার করণীয় কী। মেয়ে যদি কোনো দায়িত্বশীলের মাধ্যমে (খোলা) তালাক করে থাকে তাহলে স্বামী নতুন বিবাহের মাধ্যমে নতুন মোহর ধার্য করে তাকে পরিয়ে নিতে পারবে। (তাফসীরে ইবেনে কাসর ১/২৮৩,৮৪)।

হাসান তালাক হলো প্রত্যেক তুহুরে একটি করে তালাক দিবে। এই নিয়মে তিন তুহুরে তিন তালাক দেওয়ার নিয়ম কে তালাকে হাসান বলে। তালাকে হাসান দিলে অর্থাৎ তিন তুহুরে তিন তালাক দিলে সেই স্ত্রী তার স্বামীর জন্য চিরতরে হারাম হয়ে যাবে। সে তার স্বামীর নিকট রেজাত বা পূর্বে বিবাহে আসতে পারবে না। তবে স্ত্রীর যদি অন্য কোন পুরুষের সাথে বিবাহ হয় এবং দ্বিতীয় স্বামী যদি কোন দৈবাত কারণে তালাক দেয় অথবা মৃত্যু বরণ করে তবে ইচ্ছা করলে পূর্বের স্বামীর সহিত বিবাহ বন্দনে আবদ্ধ হতে পারবে।



কিন্তু যদি কোনো দায়িত্বশীলের মাধ্যমে (খোলা) তালাক না হয়ে থাকে সে ক্ষেত্রে তাকে (খোলা) তালাক বলে গণ্য হবে না। বরং সে ‍উক্ত স্বামীরই স্ত্রী হিসাবে আছে। তাই তারা এমনিতেই স্বামী-স্ত্রী হিসাবে সংসার করতে পারবে। এতে শরীঈ কোনো বাধা নেই।

আলোচ্য প্রশ্ন উত্তরগুলি ভালো লেগে থাকলে অনেক অনেক শেয়ার করবেন এবং কমেন্ট করবেন। আপনাদের এই সুন্দর কমেন্ট আমাদেরকে নতুন প্রশ্ন উত্তর পোষ্ট করতে মোটিভেট করে এবং সব সময় আলোর বাণীর সঙ্গে যুক্ত থাকবেন ধন্যবাদ।

Leave a Comment