নাটক সিনেমায় অভিনয়ের বিবাহ কার্যকর হবে কী?

নাটক সিনেমায় অভিনয়ের বিবাহ কার্যকর হবে কী?

পুরুষ এবং স্ত্র্রী পরস্পর একত্রিত হওয়ার বেবধানকে বিবাহ বলে। স্থায়ী অকৃত্রিম ভালোবাসা জন্মানো, সন্তান-সন্ততি জন্মদান ও বৈধ জৈবিক চাহিদা মিটানো এর মাধ্যমে পারিবারিক প্রথা বজায় থাকা হইল বিবাহের প্রধান বেশিষ্ট্য। আল্লাহ তা‘আলা তোমাদের জন্য একই জাতীয় নারীর সৃষ্টি এই জন্য করেছেন যে, তোমারা তাদের সহিদ একত্র্রে বসবাস করে শান্তি ভোগ করতে পারো। এবং আল্লাহ তা‘আলা আরো বলেছেন  নারীরা তোমাদের পোশাক এবং তোমরাও তাহাদের পোশাক। ( সুরা আল-বাক্বারাহ আয়াত নং ১৮৭)।

অতএব বলা যায়  বিবাহের  যে সকল শর্ত রয়েছে যেমন মেয়ের অভিভাবক অনুমতি দু‘জন সাক্ষির উপস্থিতি ও মোহরানা নির্ধারিত হওয়া ইত্যাদি। যদি এসব বিষয় পাওয়া যায় তাহলে নাটকিয় ও সিনেমার  অভিনয়সহ সকল  অবস্থায়  বিবাহ কার্যকর হয়ে যাবে। কেননা  বিবাহের ক্ষেত্রে ঠাট্রা-বিদ্রুপ বা অভিনয় চলবে  না।

হযরত আবু হুরায়রা (রাঃ)  হতে বর্ণীত, তিনি বলেন রসুল (সাঃ) বলেছেন তিনটি  কাজ এমন যা বাস্তবে বা ঠাট্রাচ্ছলে  করলেও তা বাস্তবিকই হয়ে যায়। তা হলো বিবাহ ,তালাক,  ও স্ত্রীকে ফিরিয়ে আনা। (আবু দাঊদ হাঃ২১৯৪, ইবনু মাজাহ হাঃ২০৩৯, তিরমিযী হাঃ১১৮৪৪)।



যেহেতু এই তিনটি বিষয়ে কোনো প্রকার অভিনয় বা ঠাট্রা চলে  না সেহেতু বিবাহের  সকল শর্ত যদি অভিনয়ের বিবাহে বিদ্যমান থাকে  তাহলে বিবাহ কার্যকর হবে। নাটক সিনেমার নামে যে নগ্নতা  অশ্লীলতা  বেহায়াপনা  ও নোংরামি সমাজে চলছে  এগুলো কখনোই ইসলাম সর্মথন করে না।  বরং এগুলোর মাধ্যমে যুবসমাজের  চারিত্রিক  ও নৈতিক অবক্ষয় হচ্ছে। ফলে সমাজে  যেনা-ব্যাভিচার  বৃদ্ধি পাচ্ছে। তবে নগ্নতা  অশ্লীলতা  অবৈধ ও অশ্লীল কথা-বার্তা ইত্যাদি না থাকলে সামাজিক উপকারার্থে  ইসলামী নাটক-নাটিকা বা সংলাপ করা যেতে পারে।

আলোচ্য প্রশ্ন উত্তরগুলি ভালো লেগে থাকলে অনেক অনেক শেয়ার করবেন এবং কমেন্ট করবেন। আপনাদের এই সুন্দর কমেন্ট আমাদেরকে নতুন প্রশ্ন উত্তর পোষ্ট করতে মোটিভেট করে এবং সব সময় আলোর বাণীর সঙ্গে যুক্ত থাকবেন ধন্যবাদ।

Leave a Comment