তিন বা পাঁচ বছর মেয়াদে বাগান বিক্রি করা যাবে কী?

তিন বা পাঁচ বছর মেয়াদে বাগান বিক্রি করা যাবে কী?

ফল পুরিপক্ব হওয়ার পূর্বে এবং এক সাথে কয়েক বছরের জন্য বিক্রি করা শরী‘আতে নিষিদ্ধ। জাবের ইবনু আব্দুল্লাহ (রাঃ) হতে বণীত, তিনি বলেন রসুল (সাঃ) মু‘আওয়ামাহ বা কয়েক বছরের জন্য অগ্রিম বিক্রিয় নিষিদ্ধ করেছেন। (আবু দাউদ হাঃ ৩৩৭৫)।

হযরত জাবের (রাঃ) হতে বর্ণীত, তিনি বলেন রসুল (সাঃ) (কোনো প্রকার গাছ বা বাগানের ফল) কয়েক বছরের জন্য অগ্রিম বিক্রি করতে নিষেধ করেছেন এবং (বিক্রিত ফল ক্রেতা কর্তৃক) সংগ্রহের পূর্বে যা নষ্ট হয় তার মূল্য কর্তন করতে নির্দেশ দিয়েছেন। (সহীস মুসলিম হাঃ১৫৩৬,১৫৫৪, মিশকাত হাঃ২৮৪১)।



হযরত জাবের (রাঃ) হতে বর্ণীত, তিনি বলেন রসুল (সাঃ) বলেছেন তুমি যদি তোমার মুসলিম ভাইয়ের কাছে তোমার বাগানের বা কোনো গাছের ফল বিক্রি করো অতঃপর তাকে বুঝিয়ে দেওয়ার পূর্বেই যদি তা বিনষ্ট হয়ে যায় তাহলে তার কাছ থেকে কোনো মূল্য গ্রহণ করা তোমার জন্য বৈধ নয়। তুমি তোমার ভাইয়ের প্রাপ্য না দিয়ে কিসের বিনিময়ে মূল্য গ্রহণ করবে? (সহীহ, মুসলিম হাঃ১৫৫৪, মিশকাত হাঃ২৮২৪)।

হযরত আব্দুল্লাহ ইবনু ওমর (রাঃ) হতে বর্ণীত, রসুল (সাঃ) গাছের ফল পরিপক্ব না হওয়া পর্যন্ত ক্রয়-বিক্রয় করতে নিষেধ করেছেন। (সহীহ ,বুখারী হাঃ২১৯৪,মুসলিম হাঃ১৫৩৪, মিশকাত হাঃ২৮৩৯)।

সহীহ মুসলিমের এক বর্ণনায় রয়েছে রসুল (সাঃ) খেজুর লাল বা হলুদ বর্ণের এবং শীষ জাতীয় বস্ত সাদা বর্ণের না হওয়া এবং কোনো রোগ-বালায় থেকে আশস্কামুক্ত না হওয়া পর্যন্ত বিক্রয় করতে নিষেধ করেছেন।(সহীহ , মুসলিম হাঃ১৫৩৫, মিশকাত হাঃ২৮৩৯)।

হযরত আনাস (রাঃ) হতে বর্ণীত তিনি বলেন  রসূল (সাঃ) ফল পরিপক্ব হওয়ার পূর্বে বিক্রয় করতে নিষেধ করেছেন। জিজ্ঞেস করা হলো, পরিপক্বতা কী? তিনি বললেন ফল লাল হওয়া। তিনি আরও বললেন দেখো যদি আল্লাহ তা‘আলা ফল ধরা বন্ধ করে দেন, তবে তোমাদের কেউ বিক্রেতা কিসের বিনিময়ে তার ভাইয়ের মাল নিবে। (সহীহ বুখারী হাঃ২১৯৮, মুসলিম হাঃ১৫৫৫, মিশকাত হাঃ২৮৪০)। আত এব,  উক্ত পদ্ধতীতে বাগান বা কোনো কিছু বিক্রি করলে তা হারাম হবে।

Leave a Comment